This entry is part 3 of 5 in the series RU UNIT REVIEW

  RU C unit 

05

September, 2018

Admission Test 2018

University of Rajshahi

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ইতোমধ্যেই তাদের ভর্তিসংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করেছে! এবার রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি প্রক্রিয়ায় এসেছে ব্যাপক পরিবর্তন! তো সেসব নিয়েই আজকের আয়জন ।
২০১৭ ও ২০১৮ সালের এইচএসসি/সমমান, ডিপ্লোমা-ইন-কমার্স, বিএফএ(প্রাক), বাংলাদেশ কারিগরী শিক্ষা বোর্ডের
অধীনে এসএসসি (ভকেশনাল) ও এইচএসসি (ভকেশনাল), O লেভেল ও A লেভেল এবং অন্যান্য সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরাই এসএসসি বা এইচএসসি সমমান নির্ধারণ কমিটি কর্তৃক অনুমােদন সাপেক্ষে । কেবল ভর্তি পরীক্ষার জন্য আবেদন করতে পারবে। সনাতন পদ্ধতিতে ও উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থী আবেদন করতে পারবে না। কেবল বিএফএ(প্রাক) ডিগ্রিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের ফলাফল এখনও সনাতন পদ্ধতিতে হওয়ায় তাদের আবেদন গ্রহণযােগ্য হবে, তবে তাদের মার্কশিট/সাটিফিকেট থাকতে হবে মানবিক শাখা থেকে উত্তীর্ণ আবেদনকারীদের এসএসসি/ সমমান ও এইচএসসি/সমমান উভয় পরীক্ষায় (৪র্থ বিষয়সহ) ন্যূনতম জিপিএ ৩.০০ সহ মোট জিপিএ ৭.০০ পেতে হবে। বাণিজ্য শাখা থেকে উত্তীর্ণ আবেদনকারীদের এসএসসি/সমমান ও এইচএসসি/সমমান উভয় পরীক্ষায় (৪র্থ বিষয়সহ) ন্যূনতম জিপিএ ৩.৫০ সহ মােট জিপিএ ৭.৫০ পেতে হবে । বিজ্ঞান শাখা থেকে উত্তীর্ণ আবেদনকারীদের এসএসসি/সমমান ও এইচএসসি/সমমান উভয় পরীক্ষায় (৪র্থ বিষয়সহ) ন্যূনতম জিপিএ ৩.৫০ সহ মােট জিপিএ ৮.০০ পেতে হবে। জিসিই 0 লেভেল পরীক্ষায় ৫টি বিষয়ে এবং A লেভেল পরীক্ষায় অন্ততঃ ২টি বিষয়ে উত্তীর্ণ হতে হবে এবং উভয় লেভেলে মােট ৭টি বিষয়ের মধ্যে ৪টি বিষয়ে কমপক্ষে B গ্রেড এবং ৩টি বিষয়ে কমপক্ষে C গ্রেড পেতে হবে। 0 লেভেল A লেভেল এবং ইংলিশ ভার্সন (ন্যাশনাল কারিকুলাম) পরীক্ষায় উত্তীর্ণ আবেদনকারীদের প্রশ্ন প্রযােজ্য ক্ষেত্রে ইংরেজিতে অনুবাদ করা হবে। ইংরেজি প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা দিতে ইচ্ছুক প্রার্থীকে তার Application ID ও মােবাইল নম্বর উল্লেখসহ ১২-০৯-২০১৮ তারিখের মধ্যে ইমেইল (ru_admission@ru.ac.bd) -এর মাধ্যমে জানাতে হবে।
Unit-C
বিজ্ঞান অনুষদ:
মোট ৬৬০ টি আসন
এর মধ্যে কেবল ১৬টি আসন (শারীরিক শিক্ষা ও ক্রীড়া
বিজ্ঞান বিভাগ) মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা
উভয় শাখার শিক্ষার্থীদের জন্য,বাকি আসন বিজ্ঞান
শাখার শিক্ষার্থীদের
প্রকৌশল অনুষদ :
মোট ২৭২ টি আসন,কেবল বিজ্ঞান শাখার
শিক্ষার্থীদের জন্য
বিজ্ঞান অনুষদ :
এটিও কেবল বিজ্ঞান শাখার শিক্ষার্থীদের জন্য এবং মোট আসন ৩৭২ টি

এবারে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সি বা বিজ্ঞান ইউনিটে পরীক্ষা হবে নিম্নোক্ত বিষয়গুলিতে ভর্তির জন্য…
• গনিত
• পদার্থবিজ্ঞান
• রসায়ন
• পরিসংখ্যান
• প্রাণ রসায়ন ও অণুপ্রাণ বিজ্ঞান
• ফার্মেসী
• পপুলেশন সায়েন্স এন্ড হিউম্যান রিসোর্স ডেভেলপমেণ্ট
• ফলিত গণিত
• শারীরিক শিক্ষা ও ক্রীড়াবিজ্ঞান
• ফলিত পদার্থ বিজ্ঞান ও ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং
• ফলিত রসায়ন ও রসায়ন প্রকৌশল
• কম্পিউটার সায়েন্স এণ্ড ইঞ্জিনিয়ারিং
• ইনফরমেশন এণ্ড কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং
• ম্যাটেরিয়াল সায়েন্স এণ্ড ইঞ্জিনিয়ারিং
• ইলেকট্রিক্যাল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং ।
তো এবার আসি আসল প্রসঙ্গে,পরীক্ষা হবে দুটি স্ট্রীমে…
(১) বিজ্ঞান স্ট্রীম
(২) অবিজ্ঞান স্ট্রীম ।
• বিজ্ঞান স্ট্রীমের পরীক্ষার্থীরা সকল বিষয়ের জন্যই পরীক্ষা দিতে পারবে,কিন্তু অবিজ্ঞান স্ট্রীমের পরীক্ষার্থীরা শুধুমাত্র শারীরিক শিক্ষা ও ক্রীড়াবিজ্ঞান বিষয়ের জন্য বিবেচ্য হবে ।
বিজ্ঞান স্ট্রীম
পরীক্ষা সর্বমোট ১০০ নম্বরের হবে । পরীক্ষা কে দুইটি শাখায় ভাগ করা হয়েছে, আবশ্যিক এবং ঐচ্ছিক ।
আবশ্যিক শাখার মধ্যে রয়েছে
• পদার্থবিজ্ঞান – ৩০
• রসায়ন – ৩০
• গণিত – ২০
ঐচ্ছিক শাখার মধ্যে রয়েছে
• জীববিজ্ঞান – ২০
অথবা
• গণিত – ১০ + আই.সি.টি – ১০
যারা ঐচ্ছিক বিষয়ের মধ্যে গণিত ও আই সি টি বেছে নেবে তারা প্রাণ রসায়ন ও অণুপ্রাণ বিজ্ঞান এবং ফার্মেসীঙ্গেই দুটি বিষয়ে ভর্তি হতে পারবে না ।
এবার আসি অবিজ্ঞান স্ট্রীমের কথায়…
অবিজ্ঞান স্ট্রীমের শিক্ষার্থীরা শুধুমাত্র শারীরিক শিক্ষা ও ক্রীড়াবিজ্ঞানের জন্য বিবেচিত হবে এবং আসনসংখ্যা হলো ১৬…
অবিজ্ঞান স্ট্রীমের পরীক্ষা হবে তিনটি বিষয়ে, যথাক্রমে
• বাংলা – ৩০
• ইংরেজী – ৩০
• সাধারণ জ্ঞান – ৪০
বাংলায় ১২ এবং ইংরেজীতে ৭ নম্বর সহ নূন্যতম ৪০ নম্বর না পেলে সে শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অকৃতকার্য বলে বিবেচিত হবে ।
শারীরিক শিক্ষা ও ক্রীড়াবিজ্ঞানে বিজ্ঞান ও অবিজ্ঞান উভয় বিভাগের শিক্ষার্থীরাই আবেদন করতে পারবে । ১০০ নম্বরের MCQ পরীক্ষার পর ব্যবহারিক পরীক্ষা হবে এবং তার পর চূড়ান্ত মেধাতালিকা দেওয়া হবে ।
ব্যবহারিক পরীক্ষা হবে ৩২ নম্বর এবং খেলাধূলায় জাতীয় সনদপত্রের জন্য রয়েছে ৮ নম্বর । BKSP এর সনদপত্রধারীদের ক্ষেত্রে পাশ নম্বর হবে ২৫ এবং তাদের জন্য থাকবে ২০% কোটা ।

আবেদন পদ্ধতি এবং পেমেণ্ট ডিটেইল
প্রাথমিক আবেদন প্রক্রিয়া :
মোবাইল নম্বর প্রদান এবং ভেরিফিকেশন আবেদন প্রক্রিয়ার শুরুতেই প্রার্থীর মোবাইল নম্বরটি নিশ্চিত করতে হবে। মোবাইল নম

্বরটি অবশয়ই প্রার্থীর নিজের অথবা অভিভাবকের হতে হবে। একই মোবাইল নম্বর একাধিক প্রার্থীর জন্য ব্যবহার করা যাবে না। প্রার্থীর ভর্তি সংক্রান্ত সকল প্রকার তথ্য প্রদানের জন্য প্রদত্ত নম্বরে যোগাযোগ করা হবে। মোবাইল নম্বর সর্তকতার সাথে প্রদান করা প্রয়োজন। ভুল নম্বর প্রদান করলে প্রার্থীর সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হবে না এবং এজন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে না। সঠিক মোবাইল নম্বর প্রদানের পর “সাবমিট” এ ক্লিক করলে প্রদত্ত মোবাইল নম্বর ফোনে চার ডিজিটের একটি পিন নম্বর পাঠানো হবে। প্রাপ্ত পিন নম্বরটি নির্ধারিত বক্সে লিখে “ভেরিফাই পিন” এ ক্লিক করলে মোবাইল নম্বরটি নিশ্চিত হবে। মোবাইল নম্বর ভুল হলে সেক্ষেত্রে “এডিট মোবাইল নম্বর” লিংকে গিয়ে নম্বরটি সংশোধন করা যাবে। প্রাথমিক আবেদনের ইউনিট সিলেকশন মোবাইল নম্বর নিশ্চিত করলে প্রার্থীর এসএসসি/স্মমান এবং এইচএসসি/সমমান পরীক্ষায় তথ্যসহ প্রাথমিকভাবে আবেদনযোগ্য ইউনিটের তালিকা প্রদর্শিত হবে। সকল তথ্য সঠিকভাবে মিলিয়ে নিতে হবে। কোন প্রকার গরমিল পরিলক্ষিত হলে “এক্সিট” এ ক্লিক করে তা সংশোধন করে নিতে হবে। আবেদনকারী যে যে ইউনিটে প্রাথমিক আবেদন করতে ইচ্ছুক তাদের পাশে টিক চিহ্ন( আবেদনযোগ্য কোন ইউনিটে পরবর্তীতেও আবেদন করা যাবে) দিয়ে “সাবমিট” এ ক্লিক দিতে হবে।ছবি আপলোড এই ধাপে আবেদনকারীকে সদ্য তোলা একটি ৩০০*৪০০ পিক্সেল সাইজের স্পষ্ট(স্টুডিও কোয়ালিটি) রঙিন জেপিজি ফরম্যাটের ছবি আপলোড করতে হবে। ছবির ফাইল সাইজ কোনো মতেই ১০০ কিলোবাইটের বেশি হতে পারবে না। ছবির পেছনে এওক রঙের হালকা ব্যাকগ্রাউন্ড থাকবে; ব্যাকগ্রাউন্ডে কোনো গাছপালা, প্রকৃতিক দৃশ্য ইত্যাদি গ্রহনযোগ্য হবে না। স্কুল/কলেজের ড্রেস পরিহিত ছবি ব্যবহার করা যাবে না। উল্লেখ্য যে, আবেদনের সময় প্রদত্ত ছবিই বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তির জন্য ব্যবহার করা হবে। সফটওয়্যারের সাহায্যে কোনো রকম ইফেক্ট দেওয়া ছবি গ্রহণযোগ্য হবে না। প্রাথমিক আবেদনের সময় ছবি সংক্রান্ত কোনো সংশোধন করা যাবে না।  কোটার তথ্য প্রদান সঠিকভাবে ছবি আপলোডের পর আবেদনকারীকে তার কোটা/কোটাসমূহ(সংশ্লিষ্ট কোটার সুবিধা নিতে আগ্রহী হলে) সিলেক্ট করতে হবে। যে কোটায় আবেদন করতে ইছুক তার পাশে টিক চিহ্ন দিয়ে সংশ্লিষ্ট কাগজপত্রের স্ক্যান কপি (সর্বোচ্চ ২ মেগাবাইট) একটি মাত্র জেপিজে/পিডিএফ ফাইলের মাধ্যমে আপলোড করতে হবে। এফএফও ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট মুক্তিযোদ্ধার সনদপত্র এবং প্রার্থীর সাথে সম্পর্ক প্রমানের প্রয়োজনীয় জন্মসনদ পত্র/পত্রসমূহ একটি ফাইল জেপিজে/পিডিএফ) -এর মাধ্যমে আপলোড করতে হবে। অন্যান্য কোটার ক্ষেত্রেও প্রয়োজনীয় প্ৰমাণপত্র আপলোড করতে। হবে। সংগৃহীত সকল কাগজপত্র সংরক্ষণ করা হবে। ভর্তি পরীক্ষা পরবর্তী সময়ে কোটার সংশ্লিষ্ট মল কাগজপত্র সহ প্ৰয়োজনীয় প্রমানাদি উপস্থাপনে ব্যর্থ হলে সকল প্রকার ভর্তির সুযোগ বাতিল করা হবে । আবেদনের তথ্য প্রদান সম্পন্নকরন। প্রয়োজনীয় তথ্যাদি সঠিকভাবে প্রদানের পর “নেক্সট” বাটনে ক্লিকের মাধ্যমে পরবর্তী ধাপে আবেদনকারীর তথ্যাবলী প্রদর্শিত হবে। কোন তথ্য ভুল থাকলে “ব্যাক” বাটনে ক্লিক করে পূর্ববর্তী ধাপে ফিরে গিয়ে তা সংশোধন করা যাবে। “সাবমিট প্রিলিমিনারী এ্যাপ্লিকেশন) বাটনে ক্লিক দিলে প্রার্থীর প্রাথমিক আবেদনের তথ্যাদি প্রদান সম্পন্ন হবে এবং একটি পি পাওয়া যাবে। উক্ত স্লিপে আবেদনকারীর এ্যাপ্লিকেশন আইডি, বিল নম্বর এবং ফি এর পরিমাণ (৫৫/ – টাকা) মুদ্রিত থাকবে। ফ্লিপটির নিচের দিকে অবস্থিত “ডাউনলোড পে স্লিপ) বাটনে ক্লিক করে স্ক্রিপটি প্রিন্ট বা সংরক্ষণ (সেভ) করা যাবে। এই ক্রিপে প্রদত্ত তথ্য পরবর্তীতে প্রয়োজন হবে। ওকে বাটনে ক্লিকের মাধ্যমে প্রক্রিয়াটি সমাপ্ত হবে। প্রাপ্ত বিল নম্বর ব্যবহার করে মোবাইল ব্যাংকিং-এর মাধ্যমে ফি প্রদান করতে হবে। প্রাথমিক আবেদনকারীদের এইসসএসসি/সমমান পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে প্রতিটি ইউনিটের জন্য অনধিক ৩২০০০ আবেদনকারী নির্বাচন করা হবে। নির্বাচিত প্রার্থীদেরকে ১৬/০৯/২০১৮ তারিখের পর নির্দিষ্ট সময় (পরবর্তীতে উল্লেখ করা হবে) এর মধ্যে admission.ru.ac.bd এর মাধ্যমে তার মূল (চুড়ান্ত) আবেদন সম্পন্ন করতে হবে ।

ফি প্রদান পদ্ধতি ও প্রাথমিক আবেদন নিশ্চিতকরণ :

স্লিপে প্রদত্ত বিল নম্বর ব্যবহার করে ডাচ-বাংলা মোবাইল ব্যাংকের মাধ্যমে প্রাথমিক আবেদনের ফি (সার্ভিস চার্জসহ ৫৫/- টাকা) নিম্নে উল্লেখিত পদ্ধতিতে প্রদান করার মাধ্যমে প্রাথমিক আবেদন নিশ্চিত (কনফার্ম) করতে হবে। সংশ্লিষ্ট ফি প্রদান ব্যতিত আবেদন সম্পন্ন হবে না। ডাচ-বাংলা মোবাইল ব্যাংকের মাধ্যমে ফি প্রদান পদ্ধতিঃ স্টেপ-1: ডায়াল *322# । স্টেপ-2: “1. পেমেন্ট” অপশন সিলেক্ট করতে হবে। স্টেপ-3:”1. বিল পে” অপশন সিলেক্ট করতে হবে। স্টেপ-4: “2. আদার্স” অপশন সিলেক্ট করতে হবে। স্টেপ-5:”এন্টার পেয়ার মোবাইল নম্বর” এর স্থলে প্রার্থীর মোবাইল নম্বর দিতে হবে। স্টেপ-6: এন্টার বিলার আইডি এর স্থলে ‘377’ টাইপ করতে হবে। স্টেপ-7:এন্টার বিল নম্বরের এর স্থলে অবশ্যই

রূিপে প্রদত্ত বিল নম্বরটি প্রদান করতে হবে। স্টেপ-8:এন্টার এ্যামাউন্ট এর স্থলে ক্লিপে প্রদত্ত সর্বমোট ফি এর পরিমাণ দিতে হবে। স্টেপ-9:এটার পিন এর স্থলে কাস্টমারের এর ডাচ-বাংলা মোবাইল ব্যাংকিং একাউন্ট এর পিন নম্বর দিতে হবে। স্টেপ-10: | পেমেন্ট কনফারমেনশন এসএমএস আসবে। এই এসএমএস থেকে ট্রানজেকশন আইডি সংরক্ষণ করতে হবে। ডাচ-বাংলা মোবাইল ব্যাংক হতে ফি প্রদানের নিশ্চিতকরণ এসএমএস পাওয়া যাবে এবং ফি প্রদানের পরবর্তী ৪৮ ঘন্টার মধ্যে সংশ্লিষ্ট আবেদনের তথ্য ওয়েবসাইটে আপডেট করা হবে। বিশেষ প্রার্থীদের আবেদন পদ্ধতি জিসিই (এ লেভেল, ও লেভেল) ও বিএফএ এর আবেদনকারীদের ওয়েব সাইটের হোম পেজে “স্টার্ট প্রিলিমিনারী এ্যাপ্লিকেশন” বাটনে ক্লিকের মাধ্যমে পরবর্তী পেজে প্রবেশ করে পরীক্ষা সংক্রান্ত সকল তথ্য (বোর্ডের স্থলে আদার্স( জিসিই-এ লেভেল/বিএফএ) সিলেক্ট করতে হবে) সহ এইচএসসি ও এসএসসি এর সমমান পরীক্ষার মাকসিটের স্ক্যান কপি (প্রতিটির সাইজ অনুর্ধ 1এমবি) আপলোড করতে হবে। পরবর্তী ৭২ ঘন্টার মধ্যে আবেদনকারীর প্রদত্ত মোবাইল ফোনে আবেদনের যোগ্যতার বিষয়টি অবহিত করা হবে। এরপর আবেদনকারীকে উপরে বর্ণিত (১) হতে (৩) নং পদ্ধতি অনুসরন করে আবেদন সম্পন্ন করতে হবে। ভৰ্তি সংক্রান্ত তথ্যের জন্য । ইমেইলঃ ru_admission@ru.ac.bd হেল্প লাইনঃ 01703-499973, 01703499974, 01797234567 (০৩/০৯/২০১৮ হতে ১২/০৯/২০১৮ তারিখ প্রতিদিন সকাল ০৯:০০টা – রাত ০৯:০০টা)…

F.A.Q

সেকেণ্ড টাইম কী আছে?
হ্যা আছে

জি পি এ এর ভিত্তিতে কী কোন নম্বর কাটা যায়?
না,যায় না ।

পরীক্ষা কী সব এম সি কিউ তে হবে?
হ্যা,কোনো লিখিত পরিক্ষা হবে না ।

সেকেণ্ড টাইমার দে কী কোনো কিছুতে নম্বর কাটা যাবে ?
না,যাবে না ।

Want new articles before they get published?
Subscribe to our Awesome Newsletter.

Series Navigation<< RU B UNIT REVIEWRU D Unit Review >>
Share This