ব্যক্তিত্ত্ববান হওয়া নেতৃত্ব প্রদানের একটি শক্তি যখন অমিশুক, কোপন স্বভাবের হওয়া আপনার আশেপাশের মানুষকে চুপ করিয়ে দেয় ও নিস্তেজ করে তোলে তথ্য আদান প্রদানের প্রবাহে ও সমবায় সমন্বয় সাধনে বিঘ্ন সৃষ্টির মাধ্যমে একটি দলের সর্বোচ্চ উৎপাদন ক্ষমতা কমিয়ে দেয়।

আপ্রতিভ, স্বেচ্ছাকারী বা প্রত্যুত্তোর এর দক্ষতার অভাব, যাই হোক না কেন এগুলোর কারণে একজন পরিচালক যে সম্মন্ধযুক্ত অনুগ্রহ থেকে একটু বিচ্যুত থাকে তিনি তার দল ও সহকর্মীদের সাথে একসাথে বসতে ও গুরুত্বপূর্ণ কথপোকথন চালাতে অস্বস্তি বোধ করেন।

এটা অস্বাভাবিক নয় যে দূরত্ব বজায় রাখাকে একজন কর্মকর্তা পছন্দ করেন এইভাবে যে, “দূরত্ব ভালো” বা “আমি অতটা উষ্ণ বা মিশুক হতে চাই না”।

এটা এমন কিছু যা আমি একজন প্রশীক্ষক হিসেবে নিজের কার্যক্ষেত্রে খুঁজি ও পরিমাপ করি। আমার প্রায় সব মক্কেলদের সহকর্মীদের সাথে সাক্ষাতকালে শুধু তাদের চাকুরীটি করার যোগ্যতা আছে কি না এটাই খুঁজি না বরং এটাও জানি যে তারা কিভাবে এটি সামলিয়ে চলেনঃ তারা কি অমায়িকতা আর সযোগিতার পরিবেশ তৈরীর অনুকূলে কাজ করেন?

উদাহরণ স্বরূপ বিভিন্ন পলিচালকদের গ্রহণযোগ্যতার প্রশ্নে আমি গত কয়েক বছরে কি অভিজ্ঞতা পেয়েছি তা নিম্ন্রূপঃ

“সে শীতল এবং দূরত্ব বজায় রাখ নিশ্চিত নই কিভাবে সে এমন হল এবং আমি তাকে কয়েকবছর ধরে চিনি। আমি শুধু নিজের কাজ করি এবং ভালো ফলাফল আশা করি, যদিও জানি না আমি কিসের দিকে আগাচ্ছি। ”

“খুঁটিনাটি বাদ দিন, যদি আপনি তার সাথে একজন বক্তি হিসেবে মিশোতে চান – এটা সম্ভব না। মানুষ শুধু তাদের কাজ করে যায়। কেউ তার আগে পিছে থাকে না।”

আমদের জিজ্ঞাসার ক্ষেত্রে প্রায় প্রত্যেকটা ক্ষেত্রেই আমি দেখেছি যে নেতৃ অবস্থানীয় ব্যক্তিরা প্রকৃতপক্ষে ‘একজন জনসাধারণের মানুষ’ কিন্তু তারা এটা নিয়ে চিন্তাও করে না; কারণ ‘কাজ হল কাজ’ বা ‘আমি এখানে কোন জনপ্রিয়তা পাবার প্রতিযোগিতায় আসি নি’ তাদের এমন মনোভাব।

কেন ব্যক্তিত্ত্ববান নেতারা বেশি জানেন

অতি ক্ষুদ্র তারতম্য, খারাপ সংবাদ বা ওই রকম কোন কিছু যা-ই হোক না কেন একজন পরিচালকের সমস্যার সমাধান ও করতে পারে যদি তার অধীনস্তরা তার কাছে এমন কিছু জানায় যাতে আরও বাজে কিছু না ঘটে বা সেই ঘটনা তার গুরুত্ব হারিয়ে ফেলে (প্রায়ই এমন যে আর কিছু করার সময় নেই) এবং অধীনস্তরা এটি জানান শুধুমাত্র পরিচালকেরা গ্রহণযোগ্য হলেই। অজ্ঞতার মূল অনেক চড়া হতে পারে এবং প্রতিক্রিয়া ও চর্চার দ্বাআ এটা এড়ানো যায়।

এটা মুখোমুখি হনঃ আপনি গ্রহণযোগ্যতা পাবেন

নিজেকে যাচাই করুন। আপনি যদি সময় ভিত্তিক কোন কাজের গুরুত্বপূর্ণ তথ্যাদি আপনার অধীনস্ত দের কাছ থেকে সঠিক সময়ে না পান, তাইলে এটা আপনাকে আপনার নিজের গ্রহণযোগ্যতার মাপকাঠি জানতে সাহায্য করবে। যেহেতু এটা আপনার পক্ষে জানা খুব একটা সহজ না, তাই আপনার আশেপাশের মানুষজনকে যাদের আপনি বিশ্বাস করুন, জিজ্ঞেস করুন যে তারা আপনার গ্রহণযোগ্যতা নিয়ে কি ভাবে? তাদেরকে যথেষ্ট সুযোগ দিন আপনার সাথে এ বিষয়ে খোলামেলা হতে।

 

আপনি যদি দেখেন যে আপনার গ্রহণযোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন আছে, এখানে আপনার জন্য কিছু পরামর্শ আছে চেষ্টা ও অনুশীলন করবার জন্যঃ

১। যখন আপনি আপনার সহকর্মী বা আপনার দলের কাছ থেকে কোন ধারণা বা পরামর্শ পাবেন, তা স্বীকার করুন। ১০ টি শব্দ বা তার কম যেকোন কিছু অন্যান্য তথ্যের জন্য আরও অনেক উৎসাহিত করে যেখানে নীরবতা বা প্রত্যুত্তোরের অভাব ঔদাসীন্য নিয়ে আসে যেটা মানুষকে আরও দূরে সরিয়ে দেয়, যেমন ‘আমি আপনার ধারণাটির মর্ম উপলব্ধি করতেছি’ অথবা ‘ধন্যবাদ, আপনার সাম্প্রতিক তথ্য আমাকে সাহায্য করেছে’।

২। আপনি যখন অভিযাজিত সুপারিশসমূহ উপেক্ষা করবেন, একটু সময় নিয়ে তা ব্যাখ্যা করুন। যদি তা না করুন, তাইলে মানুষজন তাদের নিজেদের মনমত একটা ধারণা পেতে পারে, যেমনঃ সে আমার কাছ থেকে কোন যোগান আশা করে ন সুতরাং আমি তা দিবও না আপনার নীরবতা থেকে।

৩। সময় সময় আপনার অধীনস্তদের মধ্যে একজন একজন করে পরিচিত হোন আরও গভীর ভাবে, এবং ওই সময়ে চলমান কোন কাজ বা প্রজেক্ট নিয়ে কথা এড়িয়ে চলুন।

৪। মানুষ আপনাকে জানতে চায়। আপনার ধরণ সম্পর্কিত দু’একটা গল্প বলতে দ্বিধা করবেন না।

৫। এটা ভালো যে আপনি আপনার সহকর্মীদের কে জানেন। আদতপক্ষে কতটুকু জানেন? অন্যদের সম্পর্কে প্রশ্ন করছেন এটা নিশ্চিত করুন কাজ সম্পর্কিত এবং মানবীয়। অন্যদের সম্পর্কে আপনার যত্নশীলতা ও উদ্বেগ প্রকাশ করুন যখন এটা আন্তরিক ভাবে অনুভূত হয়।

৬। মনোযোগ দিয়ে শুনতে শিখুন। চিন্তাবিক্ষেপ খেয়াল রাখুন, যেমন অন্যদের কথা বলার সময়ে তা না শুনে অন্য কিছু করা।

৭। যারা একটু ভীত ধরনের বা পায়ে পায়ে চলার প্রবণতা কম যাদের, তাদের সাথে সৌহার্দ্যপূর্ণ আচরণ করুন অতিযত্নের সাথে।

ব্যক্তিত্ত্ববান হওয়া আর পেশাদার হওয়া যে একইসাথে সমন্বয় সাধন করা যায় না এমন না বরং তা পরিপূরক। অস্পৃশ্য নেতাগণের আরও বেশি চেষ্টা করা দরকার যে তারা অন্যদের ধারণা শোনার জন্য উন্মুক্ত এবং নিজেদেরকে অন্যদের জানার সুযোগ করে দিচ্ছেন এটা নিশ্চিত করতে।

এটা প্রমাণিত যে একটি অধিক অনুবন্ধী ব্যবস্থাপনা পদ্ধতি আরও বেশী ফলদায়ক একটী সহযোগিতা পূর্ণ, উপভোগ্য কর্মক্ষেত্রের জন্য; এর ভিন্ন্রূপের চেয়ে।

সূত্রঃ https://www.huffingtonpost.com/david-peck/employee-engagement_b_2471944.html

 

Share This